রাজধানী

নারায়ণগঞ্জে মসজিদ-মাদরাসা রক্ষায় মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে সমাবেশ

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরুদ্ধে মাদরাসা উচ্ছেদ ও মসজিদ অপসারণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বাদ জুমার পর থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ মহানগর উলামা পরিষদের উদ্যোগে শহরের চাষাঢ়া বাগে জান্নাত মসিজদ সংলগ্ন মূল রাস্তায় এই সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে গত শনিবার শহরের দেওভোগ এলাকায় শত কোটি টাকা মূল্যের দেওভোগ মন্দিরের দেবত্তোর সম্পত্তি জিউস পুকুর দখলের প্রতিবাদে মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছিল বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।
সমাবেশে উলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দ সম্প্রতি ফতুল্লায় আইভী কতৃক একটি মাদরাসা উচ্ছেদ ও শহরের একটি মাদরাসা ও মসজিদ ভাঙ্গার উদ্যোগ নিয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, কোন মসজিদে মাদরাসায় হাত দিলে লাখ লাখ আলেম ওলামা আল্লাহর ঘর রক্ষায় তাজা রক্ত দিতে প্রস্তুত রয়েছে। ওই সময় বক্তারা সম্প্রতি আইভী সিঁদুর মাথায় দিয়ে দেবীর প্রনাম করা একটি ছবি উদ্ধৃতি দিয়ে ফতোয়া প্রদান করেন।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে চিটাগাং রোড মাদানীনগর মাদ্রসারা প্রধান মুফতি ও নারায়ণগঞ্জ হেফাজত ইসলামের সাধারণ সম্পাদক বশীরউল্লাহ বলেন, ফতুল্লার মাসদার্ই কবরস্থানে একটি মাদরাসা ছিল। সেটি মেয়র আইভী উচ্ছেদ করে দিয়েছেন। এ ঘটনায় আমরা খুব আঘাত পেয়েছি। কিন্তু মেয়র আইভী এবার শহরের বাগে জান্নাত মসজিদ সংলগ্ন মাদরাসা উচ্ছেদে চিঠি দিয়েছেন। এমনকি তিনি নিজে এসে নাকি মাদরাসাটি উচ্ছেদে তাগাদা দিচ্ছেন। আমরা পরিষ্কার করতে বলতে চাই মসজিদ মাদ্রাসায় হাত দিলে দেশের আলেম ওলামারা বসে থাকবে না। আল্লাহর ঘর রক্ষায় বুকে তাজা রক্ত দেয়ার ইতিহাস আমাদের জন্য সামান্য বিষয়।

সমাবেশে সভাপতি মহানগর ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা ফৌরদাউসুর রহমান সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আইভীকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, আপনি প্রধানমন্ত্রীর চেয়েও ক্ষমতাবান নন। প্রধানমন্ত্রী এই মাদরাসাকে মাস্টার্স সম্মাননা দিয়েছেন। আর আপনি আসছেন মাদরাসা উচ্ছেদ করতে। আপনি যত শক্তি নিয়ে আসেন মাদরাসা উচ্ছদ করতে সফল হবেন না।

তিনি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ধর্ম নিয়ে রাজনীতি বন্ধ করেন। ভোটের জন্য কখনো হিন্দু সাজেন আবার কখনো মুসলমান সাজেন। আপনি মাসদাইর কবরস্থানে থাকা একটি মাদরাসা উচ্ছেদ করে দিয়েছেন। আমরা এটা সহ্য করব না। অবিলম্বে আপনাকে ওই মাদরাসা পুনরায় স্থাপন করতে হবে।

ওই সময় তিনি আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আইভীকে মসজিদ মাদরাসায় ধর্মীয় উপসানলয়ে উচ্ছেদে উদ্যোগ নেয়ায় জনগণকে ভোট না দেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়ে প্রতিটি এলাকায় আইভী ঠেকাও স্লোগান তুলবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন ওই ওলামা নেতা।

মসজিদ কমিটির সদস্য শাহাদাৎ হোসেন সাজনু বলেন, যুগ যুগ ধরে এই মসজিদ। চাষাড়া এলাকার মুসল্লিরা এখানে নামাজ আদায় করেন। ছোটবেলায় দেখেছি টিনের ঘরে নামাজ হতো। সম্পূর্ণ মুসল্লিদের অনুদানে সেই মসজিদ এখন ৩ তলা। সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এখানে মসজিদ ভেঙ্গে শপিং মল আর মাদ্রাসা ভেঙ্গে পার্ক করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। এই উদ্যোগ কখনোই বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না। মসজিদের উন্নয়ন করতে চাইলে উপরে পিলার দিয়ে করেন, কিন্তু শপিং মল করে দোকান বাণিজ্য করবেন সেটা হবে না।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন স্থানীয় কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু, জেলা উলামা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা জাকির হোসাইন কাসেমী, সহ-সভাপতি মাওলানা ইসমাইল আব্বাসী, ওবায়দুর রহমান খান নদভী, মুফতি হারুন অর রশীদ, মীর আহমেদ, মুফতি দেলোয়ার হোসেন, মুফতি আনিস আনাসারী, সাজ্জাদ হোসেন, মাওলানা তাজুল ইসলাম প্রমুখ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button