রাজনীতি

দেশে দুর্নীতি ও লুটপাটের মহোৎসব চলছে: বিএনপি

সারাদেশে দুর্নীতি ও লুটপাটের মহোৎসব চলছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। দলটির পক্ষ থেকে এ অভিযোগ এনে বলা হয়েছে, সরকারের আপাদমস্তক এখন দুর্নীতিগ্রস্ত। ভূমিহীন গরীব-অসহায় মানুষদের জন্য ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার’ হিসেবে দেয়া ঘর তৈরিতে যে চিত্র প্রকাশিত হয়েছে, তাতে অন্যান্য ক্ষেত্রে কী ধরনের দুর্নীতি ও লুটপাট চলছে, তা সহজেই অনুমেয়।

আজ দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ এসব অভিযোগ করেন।

বিএনপির দপ্তরের দায়িত্বে থাকা এই নেতা বলেন, সরকার ঢাকঢোল পিটিয়ে ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ করেছে। যা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে ‘প্রধানমন্ত্রীর উপহার’ হিসেবে উল্লেখ করা হচ্ছে। সেই ঘর নিয়েও যে সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট, স্বেচ্ছাচারিতা ও দলীয়করণ হয়েছে, তা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। সেই ঘরগুলো হস্তান্তরের আগেই, কোনো কোনোটি হস্তান্তরের পর কয়েক মাস না যেতেই ধসে পড়েছে। তাতেই প্রমাণিত হয়, দেশে উন্নয়নের নামে হরিলুট চলছে।
গরীব মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে ঘরের বরাদ্দ তালিকায় নাম উঠানো হয়েছে। তাতে বাড়ি-ঘরের মালিক, জায়গা-জমি আছে, এমনকি প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীও বরাদ্দ পেয়েছেন। এছাড়া সরকারি খরচে ঘর নির্মাণ হলেও অনেক জায়গায় ক্ষমতাসীন দলের লোকেরা ৩০ থেকে ৯০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঘর বরাদ্দ দিয়েছে। শুধু তাই নয়, যাদের নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, তাদের ঘরের নির্মাণসামগ্রী ক্রয়, পরিবহন খরচ, নির্মাণ শ্রমিকদের পারিশ্রমিক এবং শ্রমিকদের খাবারের খরচ দিতেও বাধ্য করা হয়েছে। এভাবে দেশ এখন দুর্নীতিবাজদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। ভূমিহীনদের ঘর নির্মাণে এসব দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনাসহ ক্ষতিগ্রস্ত গরিব ও ভূমিহীনদের ঘরগুলো পুনর্ণির্মাণের মাধ্যমে তাদের পুনর্বাসনের দাবি জানানো হয়।

রূপগঞ্জে হাসেম ফুড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মালিকপক্ষের অবহেলা ও উদাসীনতাই দায়ী বলে অভিযোগ করেন সৈয়দ এমরান সালেহ। তিনি বলেন, অগ্নিকাণ্ডের পর সেজান জুস কারখানার মালিক-কর্তৃপক্ষের রহস্যজনক ভূমিকায় বিভিন্ন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ফ্যাক্টরির মালিক আবুল হাসেম আওয়ামী লীগ নেতা বলেই কি প্রশাসন এখন পর্যন্ত মালিক-কর্তৃপক্ষের গাফিলতি, অবহেলা ও উদাসীনতাকে আমলে নিচ্ছে না? তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কোনো পদক্ষেপ এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান হচ্ছে না?

সংবাদ সম্মেলনে মালিক-কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে বিচারসহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ও আহত শ্রমিকদের পরিবারকে আজীবন আয়ের সমান ক্ষতিপূরণ প্রদান ও পুনর্বাসনের দাবি জানান এমরান সালেহ প্রিন্স।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button